বেঁচে থাকার লড়াইয়ে স্টার্ট আপ

বেঁচে থাকার লড়াইয়ে স্টার্ট আপ
Rate this post

হাংরিনাকি ছিল দেশের প্রথম খাদ্য বিতরণ সেবা। তবে টিকতে পারেনি। ই-কমার্স এজেন্সি দারাজ স্থানীয় উদ্যোক্তাদের কাছ থেকে হাংরিনাকি কিনেছে এই বলে যে তারা ব্যবসাটি সারা দেশে ছড়িয়ে দেবে। তবে, পরিষেবাটি আর বিদ্যমান নেই।

বিশেষজ্ঞদের মতে, মধ্যবিত্ত ও নিম্নবিত্ত মানুষের মধ্য থেকে গ্রাহক দখলে সফল হওয়া স্টার্ট-আপগুলোই ভালো করছে। উদাহরণস্বরূপ, বিকাশ দ্বারা প্রদত্ত পরিষেবাটি নিম্ন আয়ের লোকদের জন্যও উপযুক্ত। একই সময়ে, শপআপের মতো সংস্থাগুলি, যার একটি মুদি দোকান ভিত্তিক ব্যবসায়িক মডেল রয়েছে, তারাও নিম্ন এবং নিম্ন-মধ্যবিত্ত গ্রাহকদের দখলে সফল হয়েছে।

স্টার্টআপ বাংলাদেশের সিইও সামি আহমেদ বলেন, স্টার্টআপ সম্পর্কিত বেশিরভাগ ধারণা ই-কমার্স বা খুচরা বাজার ভিত্তিক। গভীর প্রযুক্তি সম্পর্কিত ধারণা (কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, জৈবপ্রযুক্তি, রোবোটিক্স, ড্রোন, কোয়ান্টাম কম্পিউটিং এবং আরও অনেক কিছু)।

ই-কমার্স কোম্পানি আজকেরডিলের প্রতিষ্ঠাতা ফাহিম মাশরুর প্রথম আলোকে বলেন, ই-কমার্সের বাজার এখনো তেমন বড় নয়। কিন্তু মহামারীর সময় তা হঠাৎ করেই বেড়ে যায়। তবে মহামারী শেষ হওয়ার পর মানুষ স্বাভাবিক জীবনে ফিরে এসেছে। তাই যারা মহামারীর সময় চাহিদার ভিত্তিতে ব্যবসা শুরু করেছিলেন তারা এখন বাংলাদেশের বাজারের আসল রূপ উপলব্ধি করছেন।

*এই প্রতিবেদনটি প্রথম আলোর প্রিন্ট এবং অনলাইন সংস্করণে প্রকাশিত হয়েছে এবং আশীষ বসু ইংরেজিতে পুনরায় লিখেছেন

source

Comments

No comments yet. Why don’t you start the discussion?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *