সাংসদ ও তৃণমূলের মধ্যে দ্বন্দ্ব আরও বাড়ছে

সাংসদ ও তৃণমূলের মধ্যে দ্বন্দ্ব আরও বাড়ছে
Rate this post

এ পর্যন্ত একজন প্রতিমন্ত্রীর ঘনিষ্ঠজন ও ১২ জন সংসদ সদস্য উপজেলা নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। অন্যদিকে এমপিদের বিরোধী দলগুলো তাদের নিজেদের প্রার্থী দিতে প্রস্তুত। এমন পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে তৃণমূলে কোন্দল কমার পরিবর্তে বাড়ছে বলে মনে করছেন আওয়ামী লীগের কয়েকজন কেন্দ্রীয় নেতা।

নরসিংদী জেলা আওয়ামী লীগের এক নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে প্রথম আলোকে বলেন, আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে এমপি প্রার্থী বনাম অন্য প্রার্থীদের মধ্যে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয়েছে। নির্বাচনে দ্বন্দ্ব এড়ানো কঠিন হবে।

চলতি বছর চার ধাপে ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ৮ মে প্রথম ধাপে ১৫২টি উপজেলায় এবং ২১ মে দ্বিতীয় ধাপে ১৬১টি উপজেলায় ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এর আগে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ছিল নির্দলীয়। 2017 সালে প্রথমবারের মতো দলীয় প্রতীকে স্থানীয় সরকার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব ৩০ মার্চ রংপুর, ৩১ মার্চ চট্টগ্রাম এবং ৪ এপ্রিল খুলনা বিভাগের জেলা ও সংসদ সদস্যদের সঙ্গে বৈঠক করে। এ তিন বিভাগের বিপুল সংখ্যক তৃণমূল নেতা স্থানীয় সংসদ সদস্যদের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ তোলেন। বিশেষ করে উপজেলা নির্বাচনে এমপির আত্মীয়-স্বজন ও অনুগতদের মনোনয়নের বিরুদ্ধে তারা আপত্তি তুলেছেন।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিম প্রথম আলোকে বলেন, দলের মধ্যে কেউ অন্য দল গঠনের চেষ্টা করলে ভালো হবে না। কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ কঠোরভাবে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করবে এবং কেউ শান্তি বিঘ্নিত করার চেষ্টা করলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

source

Comments

No comments yet. Why don’t you start the discussion?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *